বগুড়ায় সৌদি আরবের আজোয়া খেজুরের চাষ হচ্ছে। গাছে গাছে থোকা থোকা ঝুলছে খেজুর। জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার আমড়া গোহাইল গ্রামের আলহাজ আবু হানিফার বাগানে এক নজর খেজুর দেখতে প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ ভিড় করছে। তার খেজুর চাষের সফলতার পর স্থানীয় অনেকেই সৌদি আরবের আজোয়া জাতের খেজুর চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। বগুড়ার কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন, দেশের বেশির ভাগ সময় এখন গরমকাল, যে কারণে খেজুর চাষ করা সম্ভব হচ্ছে।

জানা গেছে, বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার আমড়া গোহাইল গ্রামের আলহাজ আবু হানিফা ২০১৮ সালে হজে যান। হজ থেকে ফেরার সময় বেশকিছু আজোয়া খেজুরের বীজ সংগ্রহ করেন। বীজগুলো দেশে এনে ২০১৯ সালে প্রথমে তিনি ১৯টি বীজ টবে রোপণ করেন। এর মধ্যে ১৬টি বীজের চারা বের হয়। টব থেকে তুলে নিজের নয় শতক জমির মধ্যে আজোয়া খেজুর রোপণ করেন। ওই নয় শতক জমির মধ্যে তিনি কামরাঙ্গা, মিষ্টি তেঁতুল, আপেলকুল, বারোমাসি আম বারি ফোর, মাল্টা, ত্বিন ফল, জামরুল, দারুচিনি, লিচু, বড়ই, পেঁপে, থাই পিয়ারা, লেবু, আলু বোখারার চাষ করেছেন। এখন তার বাগানের প্রতিটি গাছে ফল ধরেছে। মিশ্র বাগান গড়ে যেমন সফলতা পেয়েছেন, ঠিক তেমনি আজোয়া জাতের খেজুর চাষ করেও। বাগানে খেজুরে ভরে ওঠায় স্থানীয়রা সে বাগান দেখতে ভিড় করছেন। স্থানীয় চাষীরা বীজ সংগ্রহের জন্য ধরনা দিচ্ছেন। বেকার যুবকরা আবু হানিফার কাছে আজোয়া খেজুর চাষের কলাকৌশল জেনে নিচ্ছেন।

আলহাজ আবু হানিফা জানান, তিনি দীর্ঘদিন মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেছেন। হজ থেকে ফেরার সময় যেসব বীজ নিয়ে এসেছিলেন তা প্রথম দিকে চারা হবে কিনা তা নিয়ে চিন্তিত ছিলেন। টবে চারা করার পর তিনি কৃষি বিভাগের সহযোগিতা নেন। পরে ২০১৯ সালে সেগুলো মাটিতে রোপণ করেন। আস্তে আস্তে বড় হয় গাছগুলো। সে গাছগুলোর মধ্যে একটিতে প্রায় ২০ মাস পর খেজুর ধরেছে। বর্তমানে যে খেজুর ধরেছে তাতে আনুমানিক ১০ কেজি খেজুর পাওয়া যেতে পারে। তবে পরের বছর এর চেয়ে তিন গুণ বেশি খেজুর পাওয়া যাবে। খেজুরগুলো সবসময় নেট দিয়ে রাখতে হয়। স্থানীয় চাষীরা তার কাছে আজোয়া খেজুরের বীজ চেয়েছেন। যুবকরা আসছেন কীভাবে এ চারা তৈরি করে আরো ছড়িয়ে দেয়া যায়।

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার কৃষি অফিসার মো. আদনান বাবু জানান, নন্দীগ্রাম উপজেলায় এ প্রথম আলহাজ আবু হানিফা সৌদির আজোয়া খেজুর চাষ করছেন। কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে তাকে সব রকমের সহযোগিতা ও পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। আগামী দিনে যেন বড় আকারে বাগান এবং বীজ তৈরি করা যায় সে বিষয়ে বাগান মালিককে বলা হয়েছে।

বগুড়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর হর্টি কালচারাল সেন্টার বনানীর উপপরিচালক আব্দুর রহীম বলেন, নন্দীগ্রামে যে জাতের খেজুর চাষ হয়েছে তা আজোয়া জাতের। এ আজোয়া জাতের খেজুর বগুড়ায় প্রথমবারের মতো চাষ হলো। এর আগে দুবাইভিত্তিক ভিন্ন জাতের খেজুর চাষ হয়েছিল। সৌদি খেজুর মরূভূমির ফল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x