নিজস্ব প্রতিবেদক।। অদ্য ১৬ মে ২০২২ তারিখ রোজ সোমবার বেলা ১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স রুমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিশিষ্ট ক্রীড়া শিক্ষাবিদ এবং আর্মি ইনস্টিটিউটের সিনিয়র ক্রীড়া শিক্ষক ও রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং স্কলার্স ড. দিবেন্দু বেজের আগমন উপলক্ষে শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ডঃ মোঃ শাহজাহান আলীর সভাপতিত্বে সংবর্ধনা ও একটি সংক্ষিপ্ত মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন,
ক্রীড়া দেয় সুস্থ দেহ, সুন্দর মন। নিজের শরীর ও মননকে বিকশিত করা এবং সুস্থ রাখার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে শারীরিক শিক্ষা ও শরীর চর্চা। মত মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান উদ্যোক্তা প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহুরুল ইসলাম।

তিনি তাঁর বক্তব্যের শুরুতে পশ্চিমবঙ্গের বিশিষ্ট ক্রীড়া শিক্ষাবিদ, পশ্চিমবঙ্গের আর্মি ইনস্টিটিউটের সিনিয়র ক্রীড়া শিক্ষক ও রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং স্কলার্স ড. দিবেন্দু বেজকে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, ভারত আমাদের প্রতিবেশী ও বন্ধু রাষ্ট্র। শিক্ষা, চিকিৎসা, খেলাধুৃলা ও অন্যান্য বিভিন্ন মাধ্যমে ভারতের সাথে আমাদের যোগসূত্র। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামে প্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ে আমরা ইতোমধ্যে সংগীত, চারুকলা ও শারীরিক শিক্ষা এবং ক্রীড়া বিজ্ঞানকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিয়ে পড়ালেখার সু ব্যবস্থা তৈরি করেছি। আগামীতে এই বিষয়ে আরও সুযোগ সৃষ্টি করা হবে। দু দেশের মধ্যে বিভিন্ন সেমিনার, পরিদর্শন, শিক্ষা ও গবেষণা আদান প্রদান অব্যাহত থাকবে। প্রযুক্তি নির্ভর আধুনিক যুগে বিশ্ব এখন হাতের মুঠোয়। তিনি তাঁর বক্তব্যে আরও বলেন, ভালো খেলাধুলার মাধ্যেমেও বিশ্ব জয় করা সম্ভব এবং অর্থ উপার্জনেরও যথেষ্ট সুযোগ রয়েছেম। তিনি ড. দিবেন্দু বেজের মাধ্যমে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয় এবং ভারতের ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার হবে আশা করেন।

মতবিনিময় সভায় ড. দিবেন্দু বেজ বলেন, রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে অতি অল্প সময়ের মধ্যে ক্রীড়া শিক্ষায় যে অগ্রগতি সাধিত হয়েছে তা প্রশংসার দাবিদার। তিনি তাঁর বক্তব্যে উপমহাদেশে ক্রীড়া শিক্ষা এবং প্রশিক্ষণে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয় এক অনবদ্য প্রতিষ্ঠানে রূপায়িত হতে পারে বলে তিনি আশা করেন। বিশেষায়িত ক্রীড়া শিক্ষা, আধুনিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ ক্রীড়া ল্যাব প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছাতে পারে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়। তিনি সর্বাত্মকভাবে এই প্রতিষ্ঠানের গুনগত মানউন্নয়নে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যোর মাঝে উপস্থিত ছিলেন রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রধান জনাব এমদাদ উল হক, শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক জনাব শারমিন আক্তার শান্তা ও মো. সিয়াম সরকার, মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক ড. সুজয় কুমার ভাজন, কৃষি বিভাগের প্রভাষক ইফ্ফাত জাহান হীরা, সংগীত বিভাগের প্রভাষক ঋত্বিক মাহমুদ, চারুকলা বিভাগের প্রভাষক প্রদীপ সাহা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রমোশন অফিসার ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষক ইমাম মেহেদী। মতবিনিময় সভার শুরুতে ড. দিবেন্দু বেজকে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে উত্তরীয় পরিয়ে দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ডঃ মোঃ শাহজাহান আলী এবং স্যুভেনির প্রদান করেন প্রফেসর ডঃ মোঃ জহুরুল ইসলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x