অবশেষে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যাকাউন্টের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলেন টুইটারের নতুন মালিক এলন মাস্ক। রোববার সকালেই তিনি টুইট করে জানান, জনমতের ভিত্তিতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হল। এর কিছুক্ষণ পরই দেখা যায়, টুইটারে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্য়াকাউন্ট পুনরায় দেখা যাচ্ছে। তবে দুই বছর নির্বাসিত থাকার পর আর টুইটারে ফিরতে চান না ট্রাম্প।

শনিবারই টুইটারে একটি ‘অপিনিয়ন পোল’ তৈরি করেন এলন মাস্ক। সেখানে তিনি প্রশ্ন রেখেছিলেন, টুইটারে কি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ফিরিয়ে আনা উচিত? একদিনের এই জরিপে দেখা যায়, ৫১.৮ শতাংশ মানুষ ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পক্ষে মত দেন। তারপরই এই সিদ্ধান্ত নেন মাস্ক।

এদিকে অ্যাকাউন্ট চালু হওয়ার পর ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, তার টুইটারে ফেরার আর কোনও আগ্রহ নেই। তিনি বলেন, ফেরার কোনও কারণ দেখছি না আমি ।

ট্রাম্প জানিয়েছেন, তার নিজের নতুন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ‘ট্রুথ সোশ্যাল’ ব্যবহার করবেন। ট্রাম্পের দাবি, টুইটারের তুলনায় অনেক বেশি সুবিধা রয়েছে ট্রুথ সোশ্যালে।

সম্প্রতিই ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য নিজকে প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করেন। এলন মাস্ক টুইটারের মালিকানা অধিগ্রহণের পরই ট্রাম্প তার প্রশংসা করেছিলেন এবং বলেছিলেন, তিনি সবসময়ই এলন মাস্ককে পছন্দ করতেন। তবে একইসঙ্গে তিনি জানান, টুইটারে বট, ভুয়ো অ্যাকাউন্টের মতো একাধিক সমস্যা রয়েছে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে হামলার পর সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট স্থগিত করেছিলো টুইটার কর্তৃপক্ষ।

সূত্র: এএফপি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x