২০ দলীয় জোটের অন্যতম প্রধান দুই দল বিএনপি ও জামায়াতের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই টানাপোড়েন চলছে। প্রায় দুই যুগ ধরে বিএনপির সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে যুগপৎ আন্দোলন করা জামায়াত এবার ‘একলা চলো’ নীতিতে চলার সিদ্ধান্তের কথা জানাল। জামায়াতের আমির ডা. শফিকুর রহমান জানিয়েছেন, বিএনপির সঙ্গে তাদের আর জোট নেই। বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে বৈঠক করেই সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সম্প্রতি এক সভায় ভার্চ্যুয়াল বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান। জামায়াত আমিরের এ বক্তব্য এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। দলটির মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা এমন সিদ্ধান্তের কথা জানানোর কারণে আমিরকে ধন্যবাদ দিচ্ছেন। কেউ কেউ আরও আগে জোট ছাড়া উচিত ছিল বলে মন্তব্য করছেন।

জামায়াত সূত্রে জানা যায়, দলের একটি ঘরোয়া ভার্চ্যুয়াল সভায় তিনি এ বক্তব্য দেন। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. শফিকুর রহমান বলেন, আমরা এতোদিন একটা জোটের সঙ্গে ছিলাম। ছিলাম বলে আপনারা হয়তো ভাবছেন কিছু হয়ে গেছে নাকি? আমি বলি হয়ে গেছে। ২০০৬ সাল পর্যন্ত এটি একটি জোট ছিলো। ২০০৬ সালের ২৮শে অক্টোবর জোট তার দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে। সেদিন বাংলাদেশ পথ হারিয়ে ছিলো। সেটা আর ফিরে আসেনি।

তিনি বলেন, বছরের পর বছর পর এই ধরনের অকার্যকর জোট চলতে পারে না। এই জোটের সঙ্গে বিভিন্ন দল যারা আছেন, বিশেষ করে প্রধান দলের (বিএনপি) এই জোটকে কার্যকর করার কোন চিন্তা নাই। বিষয়টা আমাদের কাছে স্পষ্ট দিবালোকের মতো এবং তারা আমাদের সঙ্গে বসে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এখন বাস্তবতা হচ্ছে নিজস্ব অবস্থান থেকে আল্লাহর উপর ভর করে পথ চলা। তবে হ্যাঁ জাতীয় স্বার্থে একই দাবিতে যুগপৎ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবো ইনশাআল্লাহ।

বিএনপির সঙ্গে জোট নিয়ে আলোচনা হয়েছে উল্লেখ করে জামায়াতের আমীর বলেন, আমরা তাদের সঙ্গে খোলামেলা আলোচনা করেছি, এর সাথে তারা ঐকমত্য পোষণ করেছে। তারা আর কোন জোট করবে না। এখন যার যার অবস্থান থেকে সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করবো। যদি আল্লাহ আমাদের তৌফিক দান করেন তাহলে আমাদের আগামী দিনগুলোতে কঠিন প্রস্তুতি নিতে হবে এবং অনেক বেশি ত্যাগ স্বীকার করতে হবে। দোয়া করেন, এসকল ত্যাগ যেনো আল্লাহর দরবারে মঙ্গলজনক হয়। এ ত্যাগের বিনিময়ে আল্লাহ পাক যেন আমাদের পবিত্র একটি দেশ দান করে। যে দেশটা কোরআনের আইনে পরিচালিত হবে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালের ৬ জানুয়ারি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, জামায়াতের তৎকালীন আমির গোলাম আযম এবং ইসলামী ঐক্যজোটের তৎকালীন চেয়ারম্যান শায়খুল হাদিস আজিজুল হককে সঙ্গে নিয়ে চারদলীয় জোট গঠন করেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এরপর থেকে সম্পর্কের টানাপোড়েন, অভিমানে জামায়াতের জোটের বৈঠক বর্জন করার মতো ঘটনাও ঘটেছে। বিএনপির কিছু কিছু নেতা বিভিন্ন সময় জামায়াত ছাড়ার বিষয়ে প্রকাশ্যে বক্তব্যও দিয়েছেন। কিন্তু জামায়াতের পক্ষ থেকে এ নিয়ে এতদিন কেউ মুখ খোলেননি। এই প্রথম দলের শীর্ষ ব্যক্তি আমির ডা. শফিকুর রহমান ঘরোয়া একটি ভার্চুয়াল বৈঠকে জোটের বিষয়ে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x