নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৩ মে, ২০২২, শুক্রবার সকাল ৯ টায় গণহত্যা-নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষণা কেন্দ্রের উদ্যোগে রাজশাহী সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ মিলনায়তনে ‘গণহত্যা-নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ ১৯৭১’শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্সের অষ্টম ব্যাচের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। প্রশিক্ষণ কোর্সটি পরিচালিত হচ্ছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, রাজশাহী এর সহযোগীতায়।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণহত্যা জাদুঘর ট্রাস্টের সভাপতি বঙ্গবন্ধু অধ্যাপক ড. মুনতাসীর মামুন। স্বাগত বক্তব্য রেখেছেন গণহত্যা জাদুঘরের ট্রাস্টি ড. মো. মাহবুবর রহমান। শুভেচ্ছা বক্তব্য দিয়েছেন রাজশাহী সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. শওকত আলী খান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, রাজশাহী-এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. হাবিবুর রহমান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ড. চৌধুরী শহীদ কাদের।

খুলনাস্থ ‘১৯৭১: গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর’-এর অন্তর্গত গণহত্যা-নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষণা কেন্দ্রের উদ্যোগে নিয়মিত দেশের বিভিন্ন জেলাতে পোস্ট-গ্র্যাজুয়েট ট্রেনিং (পিজিটি) কোর্স পরিচালিত হয়। পদ্ধতিমাফিক গবেষণার মাধ্যমে গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে সারাদেশ থেকে তুলে আনা ও ছড়িয়ে দেয়াটা এই প্রশিক্ষণ কোর্সের অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। প্রশিক্ষিত গবেষকরা সারাদেশ থেকে মুক্তিযুদ্ধের নানা অজানা ভাষ্য ও ইতিহাসকে তুলে আনেন। গবেষক তৈরি করার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ ও গণহত্যার ইতিহাস জনমানুষের মুখে থেকে তুলে নিয়ে আসা হবে এবং এই প্রশিক্ষণে স্থানীয় গবেষকদের অংশগ্রহণ মুক্তিযুদ্ধ ও ইতিহাস ছড়িয়ে পড়বে সর্বস্তরে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে এমন নানা সৃজনশীল উদ্যোগের প্রয়োজনীয়তাকে গণহত্যা জাদুঘর সর্বদা স্বীকার করে, এবং সে লক্ষ্যে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে ঢাকা, রাজশাহী, যশোর, খুলনাসহ ৭টি বিভাগে এই প্রশিক্ষণ কোর্স পরিচালিত হয়।

দেশ বরেণ্য গবেষক, শিক্ষক, ইতিহাসবিদ ও সাংবাদিক এই কোর্সে প্রশিক্ষণ প্রদান করবেন। রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষামূলক প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, গবেষক, সাংবাদিকরা এতে যোগ দিচ্ছেন। প্রশিক্ষণ কোর্সের আওতায় মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু, গণহত্যা, গবেষণা বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। লেকচার, প্রশ্নোত্তর, ক্রিটিক্যাল থিংকিং, মুক্ত-আলোচনা ও মাঠ-পর্যায়ের গবেষণাভিত্তিক থিসিস-এর মাধ্যমে এই প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তারা গণহত্যা জাদুঘরের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড নিয়ে আলোচনা করেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ গড়তে ও ইতিহাস বিকৃতি রোধে গণহত্যা জাদুঘর আয়োজিত এই প্রশিক্ষণ কোর্সের গুরুত্ব নিয়ে সবাই আলোচনা করেন। সবাই আশা ব্যক্ত করেন যে, এমনতর কর্মকাণ্ড দেশের বুদ্ধিবৃত্তিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক ইতিহাসে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x