মো. আহসানুল ইসলাম আমিন,স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর কলাবাগানের তেঁতুলতলা মাঠ রক্ষার আন্দোলনকারী ও সমাজকর্মী সৈয়দা রত্না ও তার ছেলেকে আটকের ১২ ঘণ্টা পরে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। সরকারি কাজে বাধা না দেওয়ার মুচলেকার পরিপ্রেক্ষিতে রত্না ও তার ছেলেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। রবিবার (২৪ এপ্রিল) দিবাগত রাত ১২টার দিকে তাদের পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির রমনা বিভাগের নিউমার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) শরীফ মোহাম্মদ ফারুকুজ্জামান। এর আগে রাত ৯টার দিকে পুলিশের এই কর্মকর্তা বাংলা৫২নিউজ ডটকম-কে নিশ্চিত করেন পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ায় রাত্নার বিরুদ্ধে কলাবাগান থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। সেই মামলায় তাকে সোমবার আদালতে তোলা হবে।

রত্না ও তার ছেলেকে কলাবাগান থানায় আটক করে রাখার খবর ছড়িয়ে পড়লে তার পরিবার-পরিজন ও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের লোকজন থানার সামনে ভিড় জমাতে থাকেন। রাতে কলাবাগান থানার সামনে এসব লোকজন রত্না ও তার ছেলেকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য পুলিশের কাছে দাবি জানাতে থাকেন। এরইমধ্যে আটকের ঘটনার পর থেকেই থানায় অনুপস্থিত ছিলেন কলাবাগান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পরিতোষ চন্দ্র। পরে তিনি রাত ১১টার দিকে থানায় আসেন এবং রত্নার মুচলেকার পরিপ্রেক্ষিতে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। এ বিষয়ে নিউমার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার শরীফ মোহাম্মদ ফারুকুজ্জামান বাংলা৫২নিউজ-কে বলেন, রত্না মুচলেকা দিয়েছেন তিনি পুলিশের কাজে আর বাধা দেবেন না। এই পরিপ্রেক্ষিতে আজ রাতে তার পরিবারের জিম্মায় রত্নাকে এবং তার ছেলেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

রাত ৯টার দিকে মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করার পরও পুলিশ এখন কেন বলছে মামলা হয়নি এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, তখন পর্যন্ত মামলা হয়েছে এটাই সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু পরবর্তীতে রত্নার সঙ্গে আমাদের আলাপ আলোচনা হয়। তিনি আমাদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন এবং মুচলেকা দিয়েছেন পুলিশের কাজে বাধা দেবেন না। তাই আমরা আর হার্ডলাইনে যাইনি।এর আগে সকালে সৈয়দা রত্না ফেসবুকে লাইভে গিয়ে ওই মাঠটি দখল হয়ে যাওয়া নিয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করছিলেন। এ সময় কয়েকজন সাদা পোশাকধারী পুলিশ তাকে লাইভ করতে নিষেধ করেন। এর পরপরই ওই পুলিশ সদস্যরা তার মোবাইল কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন এবং তাকে টেনে হিঁচড়ে একটি পুলিশ ভ্যানে তুলে নেন। সৈয়দা রত্নার লাইভের একটি অংশসহ এ ঘটনার ভিডিও ফেসবুকসহ সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। একই ঘটনায় সমাজকর্মী সৈয়দা রত্নার ছেলেকেও আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ।

উল্লেখ্য গত ৩১ জানুয়ারি কলাবাগানের তেঁতুলতলা মাঠে তারকাঁটার বেড়া দেয় পুলিশ। এ মাঠে কলাবাগান থানার নতুন ভবন নির্মাণ করার কথা রয়েছে। তবে মাঠটি দীর্ঘদিন ধরে কলাবাগান ও এর আশপাশের এলাকার ছেলে-মেয়েদের খেলার জায়গা হিসেবে পরিচিত। খেলার মাঠটি রক্ষায় বেশ কিছুদিন ধরে আন্দোলন করে আসছিল শিশু-কিশোররা। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়ে আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া শুরু করেন সমাজকর্মী সৈয়দা রত্না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x